1. [email protected] : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. [email protected] : Emon : Armanul Islam
  3. [email protected] : musa :
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫৮ অপরাহ্ন

সামরিক অভ্যুত্থানের পর গতকাল সবচেয়ে বড় হত্যাযজ্ঞ ঘটেছে মিয়ানমারের

  • সময় রবিবার, ২৮ মার্চ, ২০২১
  • ২৭৯ বার দেখা হয়েছে

সামরিক অভ্যূত্থানের পর কতকাল ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে মিয়ানমারে।এদিন অন্তত ১১৪ জন বিক্ষোভকারীকে গুলি করে হত্যা করা হয়। মিয়ানমারের বিভিন্ন শহরে এ হত্যাকাণ্ড চালায় দেশটির জান্তা সরকার। জান্তাবিরোধী আইনপ্রণেতাদের সংগঠন সিআরপিএইচের মুখপাত্র সাসা বলেছেন, দিনটি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জন্য লজ্জার। খবর রয়টার্স।

মিয়ানমারের ‘আর্মড ফোর্সেস ডে’তে বিক্ষোভকারীদের আগেই হুমকি দেয়া হয়েছিল। শুক্রবার দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলা হয়েছিল, বিক্ষোভ করলে ‘মাথা ও পিঠে’ গুলি খাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

আর রাজধানী নেপিদোতে সামরিক কুচকাওয়াজে অংশ নিয়ে মিয়ানমারের শীর্ষ জেনারেল মিন অং হ্লাইং নির্বাচন দেয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। তবে এজন্য তিনি কোনো সময়সীমা উল্লেখ করেননি।

গণমাধ্যম ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, তবে জান্তা সরকারের ‘হুমকি’ উপেক্ষা করেই গতকাল শনিবার ইয়াঙ্গুন, মান্দালয়সহ বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী রাস্তায় নেমে আসেন। পরে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের ওপর চড়াও হয়।

স্থানীয় নিউজ পোর্টাল দ্য মিয়ানমার নাউ জানিয়েছে, এদিন সারা দেশে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে ১১৪ জন নিহত হয়েছেন।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মান্দালয়ে অন্তত ৪০ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে পাঁচ বছর বয়সী একটি শিশুও রয়েছে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স। আর ইয়াঙ্গুনে মারা গেছেন অন্তত ২৭ জন।

এদিকে সশস্ত্র সংগঠন কারেন ন্যাশনাল ইউনিয়ন দাবি করেছে, থাইল্যান্ডের সীমান্তসংলগ্ন এলাকায় একটি সেনাচৌকিতে হামলা চালিয়ে ১০ জনকে হত্যা করেছে তারা। এ সেনাসদস্যদের মধ্যে একজন লে. কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তাও রয়েছেন। এ সময় সংগঠনটির একজন সদস্যও নিহত হন।

প্রায় দুই মাস ধরে চলা জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে গতকালের ১১৪ জনসহ চার শতাধিক বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। এ সময়ে আটক হয়েছেন প্রায় তিন হাজার বিক্ষোভকারী। গত ১ ফেব্রুয়ারি রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমারে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে দেশটির সেনাবাহিনী। গ্রেফতার করা হয় এনএলডির নেতা অং সান সু চিসহ তার দলের শীর্ষ নেতাদের। সেই থেকে দেশটিতে সেনাশাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। দিন যত যাচ্ছে, ততই রাজপথে বাড়ছে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের লাশের মিছিলের সারি।

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM