1. [email protected] : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. [email protected] : Emon : Armanul Islam
  3. [email protected] : musa :
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :

দেশে প্রথমবারের মতো বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উদযাপিত

  • সময় রবিবার, ৩০ মে, ২০২১
  • ৩০৪ বার দেখা হয়েছে

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২১ মে ২০২১ দেশে প্রথমবারের মতো উদযাপিত হলো বিশ্ব মেডিটেশন দিবস। প্রতিপাদ্য ছিল ‘নিয়মিত মেডিটেশন: সুস্থ সফল সুখী জীবন’।

দেশ বিদেশের লাখো মানুষ এ-দিন অংশ নিয়েছেন কোয়ান্টামের নানামুখী সব আয়োজনে। এই কার্যক্রমগুলোর মাধ্যমে যারা প্রথম মেডিটেশন সম্পর্কে জেনেছেন বা এ-দিন প্রথম মেডিটেশন যারা করেছেন তারা ব্যক্ত করেছেন উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়া।

দিবসের বাণী যেভাবে গণমানুষের কাছে পৌঁছেছে

মেডিটেশনের বাণী গণমানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া নিঃসন্দেহে অনেক বড় একটি সৎকর্ম- এই উপলব্ধি থেকেই দিবসটির উদযাপন। সারাদিনের যত আয়োজন তা মাত্র তিন সপ্তাহের ফসল!

শাখা সেল সেন্টারগুলো সরাসরি মানুষকে দিবসের ব্যাপারে অবহিত করেছেন। সাদাকায়ন, বিশেষ বুলেটিন ও স্টিকারের মাধ্যমে এই মেসেজ গিয়েছিল।

অনলাইনেও ছিল আয়োজন নিয়ে বিশেষ তৎপরতা। কোয়ান্টাম মেথড ওয়েবসাইট এবং অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে এ-বিষয়ে ৩টি ভিডিও এবং ১টি আর্টিকেল প্রকাশিত হয়। এছাড়াও চ্যানেল ও সাইটে ব্যানার, ১৫-২০ মে ছয়টি কাউন্টডাউন পোস্ট, চ্যানেলে একের পর এক কমিউনিটি পোস্টের মাধ্যমে মানুষকে আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত রাখা হয়।

অন্যদিকে, দেশের বহু প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া কোয়ান্টামের বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উদযাপনের বার্তা ফলাও করে প্রচার করেছিল। কোয়ান্টাম অর্গানিয়ার ও কাউন্সেলরদের নিয়ে প্রথম আলোর উদ্যোগে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান হয়। এছাড়াও রেডিও ভূমিতে ‘মেডিটেশন মোটিভেশন’ নামে একটি বিশেষ প্রোগ্রাম সম্প্রচার হয় ২০ মে ২০২১-এ।

কী কী ছিল এই আয়োজনে?

মোটাদাগে দুই ধরণের অনুষ্ঠান নিয়ে সাজানো হয়েছিল উৎসবের উদযাপন- অনসাইট ও অনলাইন।

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের দুই শতাধিক সেন্টার-শাখা-সেলে আয়োজন করা হয় মেডিটেশন উৎসব। অনসাইট বা ভেন্যুতে উপস্থিত হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাজার হাজার মানুষ এই উৎসবে অংশ নিয়েছেন। দিনটি শুক্রবার ছিল বিধায় সাপ্তাহিক সাদাকায়ন কার্যক্রমকেই মেডিটেশন উৎসবে রূপ দেয়া হয়।

আনুষ্ঠানিকভাবে সকাল ৯.২০মিনিটে শুরু হয় উৎসব। সঞ্চালকের পরিচালনায় অটোসাজেশন এবং সূচনা বক্তব্যের পর দীর্ঘদিন নিয়মিত মেডিটেশন করেছেন এমন কয়েকজন ধ্যানী মেডিটেশন নিয়ে তাদের অনুভূতি বর্ণনা করেন।

বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উপলক্ষে গুরুজীর শুভেচ্ছা বাণী ও বিশেষ মেডিটেশন

সকাল ৯.৩০ মিনিটে ছিল উৎসবের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ- গুরুজীর শুভেচ্ছা বাণী ও বিশেষ মেডিটেশন।

কেবল দেশের ভেন্যুগুলোই না, দেশের বাইরেও কোয়ান্টাম পরিবারের সদস্যরা যে যেখানে ছিলেন সেখান থেকেই বাংলাদেশ সময়ের সাথে মিলিয়ে একাত্ম হন এই মেডিটেশনে।

কোয়ান্টাম সবসময়ই অংশগ্রহণমূলক বা সঙ্ঘবদ্ধ সৎকর্মে বিশ্বাসী। আর তাই চলমান বিশেষ পরিস্থিতির কারণে যাদের পক্ষে ভেন্যুতে আসা সম্ভব হয় নি, বা শারীরিকভাবে সঙ্ঘ থেকে দূরে আছেন তারাও যাতে সঙ্ঘবদ্ধভাবে মেডিটেশন করতে পারেন সে-জন্যে করা হয়েছিল বিকল্প ব্যবস্থা।

কাকরাইলে অবস্থিত কোয়ান্টাম মেডিটেশন হলে (স্বাগতায়ন) আয়োজিত ‘বিশ্ব মেডিটেশন দিবসের বিশেষ সাদাকায়ন মেডিটেশন উৎসব’-এর লাইভ স্ট্রিমিং হয় অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে। ফলে দেশের নানা প্রান্তের, এমনকি প্রত্যন্ত অঞ্চল ও প্রবাসের দর্শকেরাও ঘরে বসেই মেডিটেশনসহ পুরো প্রোগ্রামে অংশ নেয়ার সুযোগ পান।

জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে মেডিটেশন উৎসব

শাখা সেল সেন্টারের অডিটরিয়াম ছাড়াও কয়েকটি জায়গায় উন্মুক্ত স্থানে উদযাপিত হয় বিশ্ব মেডিটেশন দিবস, যার একটি হলো জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বর। ব্যতিক্রমী এই আয়োজনে অংশ নেন ১০৭ জন ধ্যানী। মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামানের সঞ্চালনায় এই অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন বিশিষ্ট আলোকচিত্রী ও সম্পাদক কাজী রওনাক হোসেন। অংশগ্রহণকারীরা বিশেষ মেডিটেশনও করেন।

সকাল বেলা উন্মুক্ত স্থানে এমন আয়োজন জনমনে কৌতূহলের জন্ম দেয়। চত্বরের বাইরে থাকা সাধারণ মানুষেরদেরও গভীর মনোযোগ দিয়ে গুরুজীর শুভেচ্ছাবাণী শুনতে দেখা গেছে। গণমানুষের এই অংশগ্রহণ মেডিটেশন দিবসের আয়োজনকে দিয়েছে সার্বজনীন রূপ।

সংবাদমাধ্যমে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস

বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উদযাপনকে ঘিরে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের আয়োজনগুলো সাড়া ফেলে দেশের ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াতে। মেডিটেশন উৎসবের দিন, অর্থাৎ ২১ মে-র সপ্তাহখানেক আগে থেকেই মিডিয়াতে আসতে থাকে একের পর এক সংবাদ। ফলে দিনটিতে দেশ-বিদেশের সর্বত্র সকাল ৯.৩০ মিনিটে যৌথ মেডিটেশনে একাত্ম হওয়ার যে আহ্বান কোয়ান্টাম রেখেছিল তা মানুষের মধ্যে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

১৬ মে একুশে টেলিভিশনের অফিসিয়াল পেজে ‘কেন মেডিটেশন?’ নামে মেডিটেশনের ইতিহাস, বিশ্লেষণ, উপকারিতা, ব্যাপ্তিসম্বলিত একটি দীর্ঘ নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। মেডিটেশন দিবসকে ঘিরে কোয়ান্টামের আয়োজনকেও তুলে ধরা হয় এতে।

মেডিটেশনের দিবসের আগের দিন, অর্থাৎ ২০ মে রেডিও ভূমি-তে ‘মেডিটেশন মোটিভেশন’ নামে একটি বিশেষ প্রোগ্রাম এয়ার হয়, যেখানে ছিল কোয়ান্টাম মেডিটেশন এবং মেডিটেশন দিবসের আদ্যপান্ত।

ATN News, ৭১ টিভিসহ কয়েকটি টিভি চ্যানেলে এবং বাংলাদেশ প্রতিদিন, ঢাকা টাইমস, বাংলাদেশ প্রতিবেদন, দি বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড, ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসসহ বেশ কিছু প্রিন্ট ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে মেডিটেশন দিবস উদযাপনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের তৎপরতার ব্যাপারে দর্শক/পাঠকদের আগাম অবহিত করা হয়।

কোয়ান্টামের আয়োজনগুলোকে কাভার করতে সংবাদ ও গণমাধ্যমগুলোর আগ্রহ ছিল দেখার মতো

২১ মে এবং পরবর্তী দিনগুলোতে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উদযাপনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের আয়োজনগুলো নিয়ে মুখর ছিল দেশের ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া। টিভি সংবাদ ছাড়াও ছিল বিশেষ অনুষ্ঠান।

মাছরাঙা সংবাদ, মোহনা টিভি, ডিবিসি নিউজ, বিজয় টিভি, যমুনা টিভি, ইটিভি নিউজ, এনটিভি নিউজ, সময় টিভি, বাংলা ভিশনসহ বেশ কিছু নিউজ চ্যানেলে দেশের নানা প্রান্ত, এমনকি প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতেও বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উদযাপনের সংবাদ গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হয়।

প্রিন্ট মিডিয়া ও নিউজ পোর্টালেও টপ নিউজ হয়েছিল কোয়ান্টামের মেডিটেশন দিবস উদযাপন

ইউনাইটেড নিউজ বাংলাদেশ (ইউএনবি), বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস), প্রথম আলো, দৈনিক ইনকিলাব, ঢাকা টাইমস, ভোরের কাগজ, অবজার্ভার বিডি, ডেইলি সান, নয়া দিগন্ত, মানবজমিন, যায়যায়দিন, যুগান্তরসহ প্রায় সবগুলো গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হয় কোয়ান্টামের আয়োজন সংবাদ।

এদিন প্রথম আলো আয়োজন করে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস উপলক্ষে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ক বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘নিয়মিত মেডিটেশন, সুস্থ সফল সুখী জীবন’, যেখানে স্ট্রেসমুক্তি ও রোগ নিরাময়ে মেডিটেশনের গুরুত্ব এবং বর্তমান সময়ে করোনা আতঙ্ক ও করোনাজনিত অসুস্থতা নিরাময়ে মেডিটেশনের কার্যকারিতা তুলে ধরেন কোয়ান্টাম কাউন্সেলররা।

এ-ছাড়াও রেডিও পদ্মা ও এবিসি রেডিওতে ছিল মেডিটেশন দিবসের বিশেষ আয়োজন।

আর এনটিভি হেলথ-এর জনপ্রিয় ধারাবাহিক অনুষ্ঠান ‘ডাক্তার আছেন আপনার পাশে’তে প্রচারিত হয় মেডিটেশন দিবস উপলক্ষে বিশেষ এপিসোড ‘মেডিটেশনের বিস্ময়কর নিরাময় ক্ষমতা’। এই অনুষ্ঠানে রোগ নিরাময়ে মেডিটেশনের কার্যকারিতা বিষয়ে কোয়ান্টাম কাউন্সেলরদের প্রশ্নোত্তর বেশ সাড়া জাগায়।

প্রবাসে মেডিটেশন দিবস উদযাপন

২১ মে শুক্রবার ঢাকা সময় সকাল ৯:৩০টার সাথে মিলিয়ে নিজ নিজ অবস্থানে ধ্যানস্থ হওয়ার মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন শহরের ধ্যানীরা বিশ্ব ধ্যান দিবসের আয়োজনে শামিল হন। এসময় উত্তর আমেরিকায় ছিল গভীর রাত। আর ইউরোপে অনেক ভোর। অস্ট্রেলিয়া বা পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে মধ্য সকাল বা দুপুরের শুরু। কিন্তু তারপরও যে যার সময়ে ধ্যানস্থ হয়েছিলেন। এবং এই ধ্যানস্থ হওয়ার অনুভূতি তারা ব্যক্ত করেন সকাল সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠিত একটি ইউটিউব লাইভ অনুষ্ঠানে। রাবিয়া নাজরীন ও সুরাইয়া রহমানের উপস্থাপনায় এতে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, ফিনল্যান্ড, কাতার ও রুয়ান্ডা থেকে ধ্যানীরা।

এছাড়া স্থানীয়ভাবেও তারা আয়োজন করেন নানা কার্যক্রমের। এর মধ্যে কোয়ান্টাম মেডিটেশন সোসাইটি জ্যাকসন হাইটসের আয়োজনে কানিংহ্যাম পার্ক, সিডনির উদ্যোগে সিডনি অপেরা হাউজ, টরন্টোর উদ্যোগে টরন্টো ডাউনটাউন, প্যারিসের উদ্যোগে আইফেল টাওয়ার, জার্মানির হাইডেলবার্গের উদ্যোগে হাইডেলবার্গ পার্ক, ফিলাডেলফিয়ার ড্রেক্সেল ইউনিভার্সিটি প্রভৃতি আইকনিক স্থানে তারা মেডিটেশন করেন।

বিশেষ মেডিটেশনের অনুভূতি

দেশের গণমানুষকে মেডিটেশনের সাথে পরিচয় করানো ও মেডিটেশনকে জনপ্রিয় করতেই দিবসটিকে ঘিরে কোয়ান্টামের এত আয়োজন। উৎসবে অংশ নেয়া সর্বস্তরের মানুষ মেডিটেশনকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করেছে- মেডিটেশন দিবস উদযাপনের সাফল্য এখানেই।

দীর্ঘদিন ধরে যারা মেডিটেশন চর্চা করছেন কেবল তারাই নয়, প্রথম মেডিটেশন করেছেন এমন অংশগ্রহণকারীরাও মেডিটেশন নিয়ে ব্যক্ত করেছেন উৎফুল্ল অনুভূতি। অনেকেই বলেছেন তারা এখন থেকে নিয়মিত মেডিটেশন করবেন, কোয়ান্টামের কার্যক্রমে অংশ নেবেন। আগামী ১৮-২১ জুন অনুষ্ঠিতব্য ৪৭৫তম মেডিটেশন কোর্সেও অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন কেউ কেউ।

আসলে সঙ্ঘবদ্ধভাবে যত বেশি মানুষে মেডিটেশন করবেন ততো ভালো হবে প্রত্যেকের মেডিটেটিভ লেভেল বা ধ্যানের গভীরতা- এ-দিনের বিশেষ মেডিটেশনের মধ্য দিয়ে আমরা এই বিষয়টিই আবারো উপলব্ধি করলাম।

কোয়ান্টাম মেথড অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে দিনব্যাপী ছিল নানা আয়োজন

স্বাগতায়নের মেডিটেশন উৎসব লাইভ স্ট্রিমিং ছাড়াও ইউটিউব চ্যানেলে সকাল ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রচারিত হয় ৮টি লাইভ প্রোগ্রাম।

নিজস্ব স্টুডিও, সেট নির্মাণ, প্রোগ্রাম পরিকল্পনা ও এক্সিকিউশন, স্ক্রিপ্ট, ফিলার ভিডিও মেকিং, দৃশ্য ধারণ, মিউজিক সংযোজন, গ্রন্থনা, এডিটিং, অনলাইন স্ট্রিমিংসহ সকল টেকনিকেল কাজ সম্পন্ন হয়েছে কোয়ান্টামের সম্পূর্ণ নিজস্ব রিসোর্সের মাধ্যমে।

সকাল ৭টা : ‘নিয়মিত মেডিটেশন: সুস্থ সফল সুখী জীবন’

অনুষ্ঠানমালা শুরু হয় এই বিশেষ মতবিনিময় অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে। সাপ্তাহিক বিপরীত স্রোত ম্যাগাজিনের সম্পাদক মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামান এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. সুমাইয়া ফারাহ খানের মধ্যে আলাপচারিতায় উঠে এসেছে কেন মেডিটেশন করবো, পরিবারে মেডিটেশন চর্চা কী কাজে আসবে ইত্যাদিসহ মেডিটেশনের প্রাসঙ্গিকতা ও প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বিভিন্ন বিষয়।

মেডিটেশন নিয়ে সিনিয়র সাংবাদিক ও সম্পাদক কাজী রওনাক হোসেন এবং বরেণ্য পদার্থবিজ্ঞানী, শিক্ষক, লেখক ও ধর্মতাত্ত্বিক আল্লামা প্রফেসর এম. শমশের আলীর অনুভূতি নিয়ে পরিবেশিত হয় দুটি ভিডিও।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

সকাল ৮টা : Meditation for Peace Health Happiness

প্রশান্তি সুস্বাস্থ্য ও সুখী জীবনের জন্যে কেন মেডিটেশন প্রয়োজন- এ-বিষয়ে আলাপচারিতায় স্টুডিওতে ছিলেন বনানী তানজিমা রহমান এবং ডা. আবদুল্লাহ ইউসুফ।

তাদের সাথে টরন্টো থেকে এনভাইরনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ার ইফাত আরা, ৭ম গ্রেডের শিক্ষার্থী রিধিকা নন্দিনী এবং জার্মানি থেকে গবেষক-সমন্বয়ক আসিফ শাহরিয়ার যোগ দেন অনলাইনে। পুরো অনুষ্ঠান ছিল ইংরেজিতে।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

দুপুর ১২টা : প্রবাসে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস

জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে কোয়ান্টাম পরিবারের সদস্যরা ছড়িয়ে পড়েছেন বিশ্বের নানা প্রান্তে। কিন্তু সঙ্ঘের সাথে তারা ঠিকই একাত্মতা ধরে রেখেছেন নিয়মিত মেডিটেশনের মাধ্যমে। মেডিটেশন নিয়ে তাদের অনুভূতি অভিজ্ঞতা উপলব্ধি নিয়ে প্রোগ্রাম ‘প্রবাসে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস’।

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার রাবিয়া নাজরিনের সঞ্চালনায় প্রোগ্রামটিতে অতিথি হিসেবে ছিলেন ফাউন্ডেশনের পরিচালক সমন্বয় সুরাইয়া রহমান। অনলাইনে তাদের সাথে যোগ দেন নিউইয়র্ক থেকে সাংবাদিক শামীম আহমেদ এবং টরন্টো থেকে শিক্ষক ও গবেষক সুমন ধর।

এ-ছাড়াও, অনলাইনে কানাডা, বাহরাইন, প্যারিস, ফিনল্যান্ড, কাতার, মেলবোর্ন, সিডনি, পার্থ (অস্ট্রেলিয়া), মালয়েশিয়া ও রুয়ান্ডা থেকে কয়েকজন ধ্যানী প্রোগ্রামটিতে অংশ নিয়েছেন, কথা বলেছেন প্রবাসে তাদের মেডিটেশন চর্চার বিষয়ে।

তাদের কথোপকথনের মধ্য দিয়ে দর্শক জানতে পারেন পাশ্চাত্য কেন এখন মেডিটেশনমুখী হচ্ছে। আর, আমাদের জন্যে তৃপ্তির বিষয় হলো, যেসব কারণে পাশ্চাত্যের এখনকার মেডিটেশননির্ভরতা তা আরো বহু আগেই এ-দেশের মানুষ অর্জন করেছে মেডিটেশন চর্চার মাধ্যমে।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

বিকাল ৬টা : শিক্ষার্থী জীবনে মেডিটেশন

কেবল পেশাজীবনের শক্ত ভিত নির্মাণই নয়, একজন দক্ষ যোগ্য এবং সর্বোপরি ভালো মানুষ হতে যা কিছু করণীয় তার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ শিক্ষাজীবনেই হয়ে থাকে। আর মেডিটেশন করে একজন শিক্ষার্থী ঈর্ষণীয় একাডেমিক সাফল্যের সাথে সাথে হতে পারেন দক্ষতা যোগ্যতা নৈতিকতাসম্পন্ন অনন্য একজন মানুষ।

শিক্ষাজীবনে মেডিটেশন কী কাজে আসে তা নিজ নিজ অভিজ্ঞতার আলোকে তুলে ধরেছেন অতিথি আলোচকেরা। স্টুডিওতে ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক জয়নাব বিনতে হোসেন এবং সফল শিক্ষার্থী ও বর্তমানে একজন তথ্যপ্রযুক্তি উদ্যোক্তা নাসিফ সিদ্দিকী।

এ-ছাড়াও অনলাইনে মেডিটেশন নিয়ে অনুভূতি ও অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন শিক্ষক ও বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

সন্ধ্যা ৭টা : পেশা, ব্যবসা ও শিল্পজগতে মেডিটেশন

বিশ্বসেরা নামীদামী প্রতিষ্ঠানগুলোর মতো দেশেও এখন শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কর্মীদের নিয়মিত মেডিটেশনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কারণ মেডিটেশন একজন কর্মীর দেহমনের সুস্থতা ও প্রশান্তি এবং লক্ষ্যসচেতনতা সৃষ্টি করে, যা তার ব্যক্তিগত উপকারের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের জন্যেও প্রবৃদ্ধি বয়ে আনে।

এই বিষয়গুলো নিয়েই একত্র হয়েছিলেন পেশা ব্যবসা ও শিল্প জগতের সফল চার বাসিন্দা।

স্টুডিওতে ছিলেন সাইফুর’স-এর সিওও কাজী শামীম এবং বাংলাদেশ ট্যানার্স এসোসিয়েশনের অতিরিক্ত সচিব রেহানা আক্তার রুমা। অনলাইনে যুক্ত হন বুয়েটের সহকারী অধ্যাপক ইঞ্জি. সানিয়া বিনতে মাহতাব এবং মালয়েশিয়া প্রবাসী আইটি উদ্যোক্তা ইঞ্জি. মাহমুদুর রহমান ইরেশ।

অতিথিদের প্রত্যেকেই নিজ নিজে ক্ষেত্রে অত্যন্ত সফল। আর সাফল্যের মূলে ছিল তাদের দীর্ঘদিনের মেডিটেশন চর্চা। ইতিবাচক ও শোকরগোজার দৃষ্টিভঙ্গি এবং মনছবিকে কাজে লাগিয়ে স্বপ্নকে রূপায়িত করেছেন বাস্তবে।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

রাত ৯টা : মিডিয়া জগতে মেডিটেশন

বিশ্বব্যাপী তারকাজগতের মানুষেরা সম্পৃক্ত হচ্ছেন মেডিটেশন চর্চার সাথে। এদেশেও বহু সেলিব্রেটি এখন মেডিটেশন করছেন।

কিন্তু পেশাজীবনে এত ব্যস্ততার মধ্যেও তারা কীভাবে করছেন মেডিটেশন? কেনই বা করছেন? মেডিটেশন করে কী তাদের প্রাপ্তি, উপকার, উপলব্ধি?

এই বিষয়গুলো নিয়েই জমজমাট আড্ডা দিয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী এস আই টুটুল, অভিনেত্রী তারিন জাহান এবং মঞ্চ ও টিভি অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরী। আর অনলাইনে তাদের সাথে যুক্ত হন নৃত্যশিল্পী মুনমুন আহমেদ। দীর্ঘদিন মেডিটেশন চর্চায় তারা নানাভাবে উপকৃত হয়েছেন।

এস আই টুটুল বলেন, পেশাজীবনে অপ্রাপ্তিবোধ যখন মনটাকে ভারী করে তখন তিনি মেডিটেশন করে মনের আবর্জনা থেকে মুক্ত হন।

হতাশা, ক্ষোভ, না পাওয়ার বেদনার মতো মনের আবর্জনাগুলো থেকে মুক্ত হতে ‘মনের আবর্জনা দূর’ মেডিটেশনটি চমৎকার কাজে দেয় বলে অভিমত দেন মোমেনা চৌধুরী। নাটকের চরিত্রের মধ্যে ঢুকতে মেডিটেশন তাকে খুব সহায়তা করে। মুক্তিযুদ্ধের গল্প নিয়ে দর্শকসমাদৃত মঞ্চনাটক ‘লালজমিন’-এর ৩৭ পৃষ্ঠার সংলাপ তিনি মুখস্ত করেছেন মেডিটেটিভ লেভেলে গিয়ে।

তারিন মেডিটেশন কোর্স করেন ২০০৪ সালে। তিনি মনে করেন, অল্প বয়সে নেয়া সবচেয়ে সঠিক স্বিদ্ধান্ত ছিল সেটা। তার জীবনে অনেক বড় একটি পরিবর্তন এনেছে হিলিং মেডিটেশন। তার বাবা যতবার অসুস্থ হয়েছেন তিনি হিলিং-এ নাম দিয়েছেন। প্রতিবারই তার বাবা সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

অন্যদিকে, মেডিটেশন চর্চা এখনো যারা শুরু করেন নি তাদের চেয়ে যারা মেডিটেশন করছেন তারা একধাপ এগিয়ে আছেন- এই অভিমত মুনমুন আহমেদের।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

রাত ১০টা : মেডিটেশন কীভাবে করবেন

মেডিটেশন চর্চার শুরুর দিকে অনেকেরই কিছু সাধারণ জিজ্ঞাসা বা দ্বিধা-দ্বন্দ্ব থাকে। যেমন- প্রথম কিছুদিন মেডিটেশনে মনোযোগ থাকত, এখন থাকছে না; মেডিটেশনে যে দৃশ্যগুলো কল্পনা করতে বলা হয় সেগুলো ভিজুয়ালাইজ করতে পারছি না; কোন মেডিটেশন কখন করবো ইত্যাদি।

এই আয়োজনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন দু’জন দায়ীত্বশীল- রাবিয়া নাজরিন এবং বনানী তানজিমা রহমান মেডিটেশনের প্রাথমিক বিষয়গুলো দর্শকদের সাথে শেয়ার করেছেন, যেখানে ছিল মেডিটেশনের ব্যাপারে প্রশ্নোত্তর, পরামর্শ, অভিজ্ঞতা বিনিময়।

যারা সদ্য মেডিটেশন শুরুর করেছেন বা করবে ভাবছেন তাদের জন্যে সহায়িকা হিসেবে ছিল মেডিটেশন কীভাবে করবেন তার ভিজ্যুয়াল গাইডলাইন।

প্রোগ্রামটির ধারণকৃত ভিডিও দেখুন এই লিংকে

রাত ১১টা : দেশজুড়ে মেডিটেশন দিবস

বিশেষ সাদাকায়ন মেডিটেশন উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা সকল কার্যালয়ে। দিনশেষে এই আয়োজন কোথায় কেমন হলো সেটা জানাতেই ইউটিউব চ্যানেলে মেডিটেশন দিবসের সর্বশেষ এই প্রোগ্রাম। উপস্থাপনায় ছিলেন মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামান এবং মুনিমা সুলতানা।

কেউ বলেছেন ঈদের আনন্দ, কেউ বলেছেন ঈদোত্তর পূনর্মিলনী। আর কারো কাছে মনে হয়েছে আরেকটি ঈদ- কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন আয়োজিত মেডিটেশন উৎসবের অনুভূতি অংশগ্রহণকারীরা এভাবেই বর্ণনা করেছেন।

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM
Translate »