1. admin@hostpio.com : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. azmulaziz2021@gmail.com : Emon : Armanul Islam
  3. musa@informationcraft.xyz : musa :
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
মক্কা ও মদীনার দুই পবিত্র মসজিদে ২০০ নারী নিয়োগ ডেনিমে বিশ্বের প্রভাবশালীদের তালিকায় বাংলাদেশির নাম নবীজী (স) সবচেয়ে বেশি নিতেন মুখের যত্ন! ইতিহাসে অক্টোবর ১৬ – সমাজসেববক, স্বদেশী আন্দোলনের নেত্রী মনোরমা বসু মাসীমা এর মৃত্যুদিন সৌদি বাদশা ফাহাদ বাংলাদেশের প্রকৌশলী মোহাম্মদ ইব্রাহীমকে “মুহিব্বুল খায়ের” হিসেবে উপাধিতে ভূষিত ইতিহাসে অক্টোবর ১৫ – বিজ্ঞানী ও একাদশ রাষ্ট্রপতি ড. এ পি জে আব্দুল কালাম জন্মগ্রহন করেন ময়মনসিংহে শ্রমিকদের জন্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প গুনাহের শাস্তির জন্যে এসে নিয়ে গেল ঝুড়িভরা খেজুর! ইতিহাসে অক্টোবর ১৪ – খ্যাতনামা রবীন্দ্র বিশারদ পুলিনবিহারী সেন এর মৃত্যুদিন মোস্তফা পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন ব্যক্তির মাউন্ট এভারেস্ট জয়

  • সময় সোমবার, ৩১ মে, ২০২১
  • ২২৬ বার দেখা হয়েছে

এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন ব্যক্তির মাউন্ট এভারেস্ট জয়

এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন এক ব্যক্তি মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন। ঝাং হং নামের ৪৬ বছর বয়সী চীনের ওই নাগরিক নেপালের দিক থেকে মাউন্ট এভারেস্টে ওঠেন। বিশ্বে তিনিই তৃতীয় অন্ধ ব্যক্তি, যিনি এভারেস্ট জয় করলেন। খবর রয়টার্সের।

ঝাং বলেন, ‘আপনি পঙ্গু নাকি স্বাভাবিক, সেটি কোনো বিষয় নয়। আপনি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন কি না অথবা আপনার হাত বা পা নেই, এটিও কোনো বিষয় নয়। আসল কথা হলো, আপনার মনোবল দৃঢ় কি না। মনোবল দৃঢ় থাকলে অন্যরা না পারলেও আপনি কাজ শেষ করতে পারবেন।’

২৪ মে ঝাং এভারেস্টের ৮ হাজার ৮৪৯ মিটার উঁচুতে ওঠেন। গত বৃহস্পতিবার তিনি বেসক্যাম্পে ফিরে আসেন।

চীনের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের চংকুয়াং শহরে ঝাং জন্ম নেন। ২১ বছর বয়সে গ্লুকোমার কারণে অন্ধ হয়ে যান। প্রথমে ২০০১ সালে এরিক ওয়েহেনমায়ের নামের অন্ধ এক মার্কিন পর্বতারোহী এভারেস্ট জয় করেন। তিনিই অনুপ্রাণিত করেন ঝাংকে। বন্ধু ও পর্বত আরোহণের গাইড কিয়াং জির কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করেন ঝাং। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত বছর মাউন্ট এভারেস্টে আরোহণ বন্ধ করে দেওয়া হয়। গত এপ্রিলে নেপাল মাউন্ট এভারেস্ট আবার বিদেশিদের জন্যে খুলে দেয়। এভারেস্টে আরোহণের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে ঝাং বলেন, পর্বতে আরোহণের সময় তিনি খুবই ভয় পাচ্ছিলেন। তিনি দৃষ্টিহীন হওয়ায় মাঝেমধ্যে পড়ে যাচ্ছিলেন।

ঝাং বলেন, পর্বত আরোহণের কাজটি কঠিন। এতে বিপদও রয়েছে। সব প্রতিকূলতা পার হয়েই তাকে এগিয়ে যেতে হয়েছে।

 

সূত্র: প্রথম আলো (৩০ মে ২০২১)

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM