1. admin@hostpio.com : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. azmulaziz2021@gmail.com : Emon : Armanul Islam
  3. musa@informationcraft.xyz : musa :
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :

পটিয়ায় হুইপ সামশুলের বিরুদ্ধে জুতা মিছিল

  • সময় রবিবার, ৬ জুন, ২০২১
  • ১৭২ বার দেখা হয়েছে

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা সামশুদ্দিন আহমেদকে হত্যার হুমকিদাতা জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, তাঁর ছোট ভাই মুজিবুল হক নবাব ও হুইপপুত্র নাজমুল করিম শারুনের বিরুদ্ধে জুতা মিছিল করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা চেতনা প্রজন্ম। মিছিল থেকে তারা অবিলম্বে হুইপ, তাঁর ভাই ও ছেলে শারুনের গ্রেপ্তার ও হুইপের পদ থেকে বহিষ্কার এবং সংসদ সদস্য পদ শূন্য ঘোষণার দাবি জানায়।

গতকাল শনিবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে পটিয়া পৌরসভা বাস স্টেশনের কাছে হুইপ সামশুল হক মুক্তিযোদ্ধা সামশুদ্দিন আহমেদকে হত্যার হুমকি দেওয়াসহ নানা অপকর্মের প্রতিবাদে সমাবেশ আয়োজন করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা। সমাবেশে হাজার হাজার নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। সমাবেশ চলাকালে মাঝপথে পুলিশ এসে এতে বাধা দেয়। এ সময় উপস্থিত হাজার হাজার নেতাকর্মী ফুঁসে ওঠেন।

এক পর্যায়ে নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পৌরসভা শহরজুড়ে হুইপের বিরুদ্ধে জুতা মিছিল করেন। মিছিলকারীরা জুতা হাতে উঁচিয়ে বলতে থাকেন, ‘হুইপের দুই গালে জুতা মার তালে তালে। হুইপের ভাই ও ছেলে শারুনের দুই গালে জুতা মার তালে তালে। পটিয়ার মাটিতে হাইব্রিড হুইপের কোনো স্থান নেই’ বলে শহরজুড়ে রব ওঠে মিছিল থেকে।  হুইপ সামশুল হক, তাঁর ভাই ও ছেলে শারুনের অবিলম্বে গ্রেপ্তার চাই বলেও মিছিল করতে থাকেন হাজার হাজার নেতাকর্মী।

মিছিলের আগে অনুষ্ঠিত সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা চেতনা প্রজন্ম পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক, পটিয়া সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ও পটিয়া পৌরসভা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ডি এম জমির উদ্দিন প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, ‘হুইপ সামশুল হকের মতো কিছু কুলাঙ্গারের জন্য বর্তমান সরকারের সমস্ত অর্জন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। হুইপ সামশুল হককে গ্রেপ্তারের দাবিতে আমরা এখানে দাঁড়িয়েছি। যদি হুইপ সামশুল হককে গ্রেপ্তার করা না হয়, তাঁর সংসদ সদস্য পদ যদি বাতিল না করা হয়, তাহলে ভবিষ্যতে আমরা আরো কঠিন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব। প্রয়োজন হলে আমরা সারা দেশে একযোগে কর্মসূচি ঘোষণা করব।’

তিনি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যেভাবে হয়রানি করা হচ্ছে, এর পেছনে যারা রয়েছে, হুইপ সামশুল হকসহ তাঁর ভাই ও তাঁর ছেলেকে যদি আইনের আওতায় আনা না হয়, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া না হয়, তাহলে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা আরো ঘটবে।

মুক্তিযোদ্ধা চেতনা প্রজন্ম পরিবারের পক্ষে থেকে আরো বলা হয়, বাংলাদেশে বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের জন্য দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমস্ত সফলতা এবং অর্জন ম্লান করে দেওয়ার জন্য বিএনপি-জামায়াত থেকে আসা এসব সামশুল হককে প্রতিহত করবে মুক্তিযোদ্ধ সন্তান পরিবার।

হুইপপুত্র শারুনের কথা উল্লেখ করে ডি এম জমির উদ্দিন বলেন, ‘আমরা দেখেছি এই শারুন একে ফোরটি সেভেন নিয়ে গুলি করছে, সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। কিন্তু বাংলাদেশের প্রশাসন এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সেদিকে নজর দেয়নি। হুইপের ছত্রচ্ছায়ায় নবাব-শারুনরা পটিয়ায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। পটিয়ার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নির্যাতনের জন্য একটি অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। সরকারকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, ‘একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, যিনি পটিয়ায় মুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার ছিলেন, সেই মুক্তিযোদ্ধাকে তিনি (হুইপ সামশুল) হত্যার হুমকি দিয়েছেন। তাঁকে লুঙ্গি খুলে পেটানোর হুমকি দিয়েছেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা এবং ধিক্কার জানাই। সরকারকে বলতে চাই, আপনারা যদি এসব কুলাঙ্গার, দুর্নীতিবাজ এবং মানবপাচারকারীকে শায়েস্তা করতে না পারেন, বাংলাদেশের জনগণ আপনাদের প্রত্যাখ্যান করবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা বলতে চাই, এসব কুলাঙ্গারের দায়িত্ব যেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ না নেয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে এসব জাতীয় বেয়াদবকে ঘাড় ধরে বিতাড়িত করুন। অন্যথায় সাধারণ জনগণ আওয়ামী লীগ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে।’

তিনি বলেন, হুইপ সামশুল হককে দ্রুত আইনের আওতায় আনতে হবে। এটা না করলে মুক্তিযোদ্ধা চেতনা প্রজন্ম এবং পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সারা দেশে একযোগে বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করবে। যাঁরা সামশুল হকদের মতো মানবপাচারকারী, দুর্নীতিবাজ, জনবিচ্ছিন্ন সংসদ সদস্য রয়েছেন, যাঁরা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের নির্যাতনকারী রয়েছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মুক্তিযোদ্ধা চেতনা প্রজন্মসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে নিয়ে এক হয়ে রাস্তায় নামবে।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘গত ১০ বছরে হুইপ সামশুলের সম্পদ বেড়েছে ১৫০০ গুণ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আপনার মন খারাপ দেখলে আমাদের মন ভীষণ খারাপ লাগে। আপনার মনে হাসি দেখলে আমাদের মনে হাসি লাগে। ১৩ বছর যাবৎ অবৈধভাবে যাঁরা লুটপাট করে নিজেদের আখের গুছিয়েছেন, তাঁরা কখনো আপনার জন্য মরবে না, তাঁরা কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ডে টাকা পাচার করে সম্পদ গড়েছেন। নেত্রী আপনার জন্য আমরা রাজপথে মরার জন্য প্রস্তুত। কিন্তু আজ ১৩ বছর পটিয়া তৃণমূলের কান্নার আওয়াজ আপনার গণভবনে পৌঁছে না। যদি এক সপ্তাহের মধ্যে এই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের অপমানের বিচার না হয়, সেই বিচার করবে পটিয়া উপজেলা তৃণমূল আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধারা। নেত্রী আপনার সম্মানে এখনো হুইপকে পটিয়া থেকে  ধাওয়া করি নাই। আমরা আপনার সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছি।’

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন পটিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক সদস্য সাইফুল ইসলাম সাইফু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম হোসেন অভি, হাসান শরিফ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সুজন বড়ুয়া, ওবায়দুল কাদের,  কেন্দ্রীয় তৃণমূল আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বেলাল শরিফ, পটিয়া পৌরসভা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওবায়দুল্লা চৌধুরী সুমন, মো. আনিস ও মাহাবুব।

প্রতিবাদ সমাবেশে বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার সহসম্পাদক মীর হোসেন, কাওছার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এন এস হৃদয়, অর্থ সম্পাদক সাকিব, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মহিউদ্দিন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আসাদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মনির, মোহাম্মদ মহিম, আবদুল আউয়াল, সাইফুউদ্দিন ভোলা, নজরুল ইসলাম, মো. ইলিয়াস, রিফাত, দিহান, ইরাজ, সৈয়দ নূর, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আজম, শহিদুল ইসলাম, রায়হান, বাবু, মোহাম্মদ সোহেল, বাছেকসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও শ্রমিক লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM