1. admin@hostpio.com : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. azmulaziz2021@gmail.com : Emon : Armanul Islam
  3. musa@informationcraft.xyz : musa :
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

মেদস্থূলতা কমাতে ফাস্টফুডকে মনে করুন ডাস্টবিনের আবর্জনার মতোই বর্জনীয়!

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
  • ৯৩ বার দেখা হয়েছে

পেটে মেদ বা চর্বি হলে চলা-ফেরায় যেমন কষ্ট হয়, তেমনি নষ্ট হয় সৌন্দর্যও। বিশেষ করে যারা দীর্ঘ সময় বসে কাজ করেন, তাদের ক্ষেত্রে পেটের মেদ বৃদ্ধি একটি কমন সমস্যা।  খাওয়াদাওয়ার ক্ষেত্রে অল্প নিয়ম মানা সম্ভব হলেও, আলাদা করে জিমে গিয়ে মেদ ঝরানো সম্ভব হয় না বেশির ভাগেরই। শরীর মোটা নয় কিন্তু পেটে অনেক মেদ কিংবা দেহের কিছু কিছু স্থানে মেদ জমায় খুবই অস্বস্তি বোধ করছি। এমন কথা অনেক বেশি শোনা যায় আজকাল। এর কি কোন উপাই নেই? আছে অবশ্যই আছে। আসুন জেনে নিই কয়েকটি পদ্ধতি যা আপনাকে শরীরের অবাঞ্ছিত মেদ থেকে রক্ষা করবে।

যখনই আপনি মেদস্থূলতায় আক্রান্ত হবেন হৃদরোগ ডায়াবেটিস উচ্চ রক্তচাপ হাই কোলেস্টেরলে আক্রান্ত হবেন, তখন করোনা আপনাকে সব থেকে বেশি কাবু করে ফেলবে।

যদি স্থূলতায় আক্রান্ত না হন তাহলে বয়স আপনার ৬০ হোক ৭০ হোক ৮০ হোক করোনায় আপনার কাবু হওয়ার আশঙ্কা কমে যাবে।

জাপানে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা সারা পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি। অথচ করোনায় মৃত্যুর হার সেখানে অনেক কম। গবেষকদের মতে এর কারণ জাপানীদের মধ্যে মেদস্থূলতা কম।

আসলে বুকে এবং পাকস্থলীতে চর্বি বেশি থাকলে ফুসফুসের ওপর চাপ বেশি পড়ে, অক্সিজেনের চাহিদা বেড়ে যায়। এর চেয়েও চিন্তার কারণ হলো যাদের ওজন বেশি তাদের দেহে ভ্যাক্সিনের কার্যকারিতা কম।

স্থূলকায় মানুষ বয়সে যদি তরুণও হন তবুও তার শরীর পর্যাপ্ত পরিমাণ এন্টিবডি তৈরি করতে পারে না। বৈজ্ঞানিক সমীক্ষা তাই বলে। অতএব মেদস্থূলতা কমানোর জন্যে ফাস্টফুডকে ডাস্টবিনের আবর্জনার মতো বর্জনীয় হিসেবে মনে করবেন।

এবং চিনি পুরোপুরি বর্জন করবেন। এবং চর্বিদার খাবার কম খাবেন। বিশেষত মাংসজ চর্বিদার খাবার কম খাবেন।

পেটের মেদ দূর করার সহজ উপায়ঃ

প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে লেবু ও একটু লবণ দিয়ে শরবত তৈরি করে খাবেন। এভাবে ১মাস খান পেটের মেদ দূর হয়ে যাবে।

সকালে দুই বা তিন কোয়া কাঁচা রসুন খেতে হবে। লেবুর শরবত পান করার পরই এটি খেয়ে নিলে ভালো ফল পাওয়া যাবে। এ পদ্ধতিটি আপনার শরীরের ওজন কমানোর প্রক্রিয়াটি দ্বিগুণ গতিতে করবে। একই সঙ্গে আপনার শরীরের রক্ত সঞ্চালন হবে মসৃণ গতিতে।

সকালের নাশতায় অন্য খাবারের পরিমাণটা কমিয়ে সেখানে স্থান করে দিতে হবে ফলের। প্রতিদিন সকালে এক বাটি ফল খেলে পেটে চর্বি জমার হাত থেকে অনেকটা রেহাই পাওয়া যাবে।

পেটের চর্বি থেকে মুক্তি পেতে হলে পানির সঙ্গে করতে হবে বন্ধুত্ব। কেননা পানি আপনার শরীরের পরিপাক ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয় এবং শরীর থেকে ক্ষতিকর সব কিছু বের করে দিতে সাহায্য করে।

সাদা চালের ভাত থেকে দূরে থাকুন। এর পরিবর্তে আটার তৈরি খাবার খেতে হবে।

দারুচিনি, আদা, কাঁচা মরিচ দিয়ে রান্না করুন আপনার খাবার। এগুলো শরীরের রক্তে শর্করার মাত্রা কমিয়ে রাখতে সহায়তা করে।

চিনিজাতীয় খাবার শরীরের বিভিন্ন অংশে চর্বি ভূমিকা রাখে, বিশেষ করে পেট ও ঊরুতে। পেটের চর্বি থেকে রেহাই পেতে হলে চিনি এবং চিনিজাতীয় খাবারের সঙ্গে শত্রুতা ছাড়া উপায় নেই।

উচ্চ তেল যুক্ত খাবার এবং কোল্ড ড্রিঙ্কস গুলো শরীরের বিভিন্ন জায়গায় চর্বি জমিয়ে রাখে। যেমন আমাদের পেট কিংবা উরু। সুতরাং বুঝেই ফেলেছেন যে এই খাবার গুলো তালিকা থেকে বাদ দিয়ে দিতে হবে।

সবকিছুর পরেও মেদ কমাতে ব্যায়ামের বিকল্প নেই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM