1. admin@hostpio.com : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. azmulaziz2021@gmail.com : Emon : Armanul Islam
  3. musa@informationcraft.xyz : musa :
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:২১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :

ইতিহাসে অক্টোবর ৫ – সাংবাদিক ও সাহিত্যিক মুজিবুর রহমান খাঁ মৃত্যুবরণ করেন

  • সময় মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ৭৯ বার দেখা হয়েছে

গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুসারে আজ বছরের ২৭৮ তম (অধিবর্ষে ২৭৯ তম) দিন। এক নজরে দেখে নিই ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটনা বিশিষ্টজনের জন্ম ও মৃত্যুদিনসহ আরও কিছু তথ্যাবলি।

ঘটনাবলি

১৯০৮ : বুলগেরিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়।
১৯৪৭ : কলকাতা ফিল্ম সোসাইটি স্থাপিত হয়।

জন্ম

১৮২৯ : চেস্টার এ. আর্থার, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ২১তম রাষ্ট্রপতি।
১৮৭৯ : ফ্রান্সিস পেটন রাউস, নোবেলজয়ী আমেরিকান রোগবিদ্যাবিদ।
১৮৯৪ : ধূর্জটিপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, প্রখ্যাত বাঙালি লেখক ও অর্থনীতিবিদ।
১৯০৬ : মীরা দত্তগুপ্ত, ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের এক বিপ্লবী ও জননেত্রী।
১৯৩০ : রেইনহার্ড সেল্টেন, নোবেলজয়ী জার্মান অর্থনীতিবিদ।
১৯৮৩ : মাশরাফি বিন মুর্তজা, বাংলাদেশি ক্রিকেটার ও সংসদ সদস্য।

মৃত্যু

১৯৭৬ : নোবেলবিজয়ী নরওয়েজীয়-মার্কিন রসায়নবিদ ও পদার্থবিদ লার্স অনসেজার
১৯৮৪ : বাঙালি সাংবাদিক ও সাহিত্যিক মুজিবুর রহমান খাঁ
২০১১ : অ্যাপল ইনকর্পোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা স্টিভ জবস
২০২০ : ভারতীয় বাঙালি গায়ক ও অভিনেতা শক্তি ঠাকুর
২০২০ : একুশে পদকপ্রাপ্ত বাংলাদেশি চিত্রশিল্পী ও অধ্যাপক মনসুর উল করিম।

দিবস

বিশ্ব শিক্ষক দিবস

মুজিবুর রহমান খাঁ

মুজিবুর রহমান খাঁ ছিলেন একজন বাংলাদেশি সাংবাদিক ও সাহিত্যিক। জাতীয় প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি ছিলেন। সাহিত্য ও সাংবাদিকতায় অবদানের জন্যে তিনি পাকিস্তান সরকার প্রদত্ত সেতারা-ই-কায়েদে আজম এবং সাংবাদিকতায় অবদানের জন্যে ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত সরকারি সম্মান একুশে পদকে ভূষিত হন।

জন্মগ্রহণ করেন ১৯১০ সালের ২৩ অক্টোবর তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির (বর্তমান বাংলাদেশ) নেত্রকোণা জেলার উলুয়াটি গ্রামে। বাবা মরহুম ইসমাইল উদ্দিন খাঁ। মা নাম মরহুমা নজিরুন্নেসা খাতুন।

নেত্রকোণার আঞ্জুমান হাইস্কুল থেকে প্রবেশিকা পাস করেন ১৯২৮ সালে। পরবর্তীতে তিনি ১৯৩৪ সালে আনন্দ মোহন কলেজ থেকে বিএ পাস এবং ১৯৩৮ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এমএ পাস করেন।

শিক্ষকতার মাধ্যমে কর্মজীবনের শুরু। পাশাপাশি সাংবাদিকতা শুরু করেন। ১৯৩৬ সালে কলকাতার সাপ্তাহিক মোহাম্মদীতে সাংবাদিক হিসেবে যোগ দেন। একই বছর অক্টোবরে তিনি দৈনিক আজাদে সহ-সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন এবং ওই পদে কর্মরত ছিলেন ১৯৩৯ সাল পর্যন্ত। ১৯৩৯ সালে তিনি যুগ্ম সম্পাদকের পদ লাভ করেন।

১৯৪৮ সালে সৈনিক আজাদ ঢাকায় আসার পর তিনি একই পদে তার দায়িত্ব পালন করতে থাকেন। পাশাপাশি তিনি ১৯৫৩ সাল থেকে মাসিক মোহাম্মদীর সম্পাদক হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত আজাদ ও মোহাম্মদীতে তার দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৫ সালে তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পয়গামের সম্পাদক পদে যোগ দেন এবং ১৯৭১ সাল পর্যন্ত এই দৈনিকের সাথে জড়িত ছিলেন।

স্বাধীনতা উত্তর ১৯৭৬ সালে দৈনিক আজাদ পুনঃপ্রকাশিত হলে তিনি এই পত্রিকার সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতির পদ লাভ করেন। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি এই পদে বহাল ছিলেন।

মুজিবুর রহমান বিভিন্ন সামাজিক, সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি অল বেঙ্গল অ্যান্টিফ্যাসিস্ট রাইটার্স গিল্ডের প্রতিষ্ঠাতা সহ-সভাপতি এবং ১৯৪৪ সালে বঙ্গীয় মুসলমান সাহিত্য সমিতির সম্পাদকের পদ লাভ করেন। ১৯৪৬ সালে তিনি ভারতের প্রথম বঙ্গীয় গণপরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৫২ সালে মিশর এবং ১৯৫৪ সালে হল্যান্ড সফরে যান। ১৯৫৪ সালের ২০ অক্টোবর ঢাকায় পূর্ব পাকিস্তান প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠিত হয়।

তিনি এর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি নির্বাচিত হন এবং ১৯৫৮ সাল পর্যন্ত এই পদে নিযুক্ত ছিলেন। এছাড়াও তিনি ১৯৫৪ সালে গঠিত পূর্ব পাকিস্তান রেনেসাঁ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক, পাকিস্তান আর্টস কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক এবং বুলবুল ললিতকলা একাডেমির সহ-সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করেন।

মুজিবুর রহমান খাঁ রচিত গ্রন্থগুলোর মধ্যে বিলাতে প্রথম ভারতীয়, ইকনমিক প্রবলেম অব ইস্ট পাকিস্তান, সাহিত্যের সীমানা, সাহিত্য ও সাহিত্যিক, মহানবী, সাহিত্যেও বুনিয়াদ, আমাদের ইতিহাস, নয়া তারিখ ইত্যাদি। সেতারা-ই-কায়েদে আজম, একুশে পদক ছাড়াও মননশীলতার ক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘সৈয়দ আলী আহসান সিএনসি পদক’ (মরণোত্তর) দেয়া হয়।

মুজিবুর রহমান ১৯৮৪ সালের ৫ অক্টোবর ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। বনানী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

সূত্র : সংগৃহীত

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM