1. [email protected] : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
  2. [email protected] : Emon : Armanul Islam
  3. [email protected] : musa :
বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন

মৌনতা :

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫৪ বার দেখা হয়েছে
চীনা গল্প
মৌনতা কোনো সহজ ব্যাপার নয়…
মৌন থাকাটা কিন্তু সহজ ব্যাপার নয়, ইটস ভেরি ডিফিকাল্ট। এবং কত ডিফিকাল্ট এই নিয়ে চীনের গল্প আছে।
গল্পটা যেন হয় অসম্ভব!
এক রাজা ইচ্ছে করলেন যে, গল্প প্রতিযোগিতা করবেন। কিন্তু গল্পটা এমন হতে হবে যেটা সম্ভব না, অসম্ভব।
তো বিভিন্ন রাজ্য থেকে গল্পকাররা আসছে, গল্প বলছে।
রাজা বলছেন যে, সম্ভব, এটা সম্ভব। এটা অসম্ভব না, এটা সম্ভব। এটা হতে পারে। অতএব পুরস্কার আর কেউ পাচ্ছে না।
বাস্তব ঘটনা কিন্তু অসম্ভব!
তো এক প্রবীণ গল্পকার এলেন।
তিনি উপস্থিত হলেন রাজ দরবারে। বললেন যে, মহারাজ! আমি এসছি গল্প বলার জন্যে না। কারণ আপনাকে তো ‘অসম্ভব’ গল্প বলা সম্ভব না। আপনি এত জানেন! তবে একটা বাস্তব ঘটনা বলি।
সকাল পেরিয়ে সন্ধ্যা! কিন্তু দুজন মহিলা চুপচাপ…
রাজা বললেন যে, কী ঘটনা?
বললেন যে, একদিন মন খুব খারাপ ছিল। পার্কে বসে আছি! এদিকে তাকাই ঐদিকে তাকাই বিষণ্ণ মন। গাছের দিকে তাকাই, পাখির দিকে তাকাই, আকাশের দিকে তাকাই, ফুলের দিকে তাকাই। মন খুব খারাপ।
এই তাকাতে তাকাতে পার্কের ঐ প্রান্তে দৃষ্টি চলে গেল। ওখানে একটা বেঞ্চ। দেখি যে, দুজন মহিলা বসে আছে। পাশাপাশি বসে আছে। আর কোনো জনমানব নাই। কিছুক্ষণ পরপরই আমার দৃষ্টি ঐদিকে চলে যাচ্ছে।
তো কয়েকবার দৃষ্টি যাওয়ার পরে খেয়াল করলাম যে, মহিলা দুজন পাশাপাশি বসেই আছে। কিন্তু কেউ কারো সাথে কথা বলছে যে এরকম মনে হচ্ছে না।
যখন মনে হলো, কথা বলতে তো দেখছি না। তখন মাঝে মাঝেই ঐদিকে তাকাতে শুরু করলাম যে ঘটনা কী! দুজন মহিলা বসে আছে পাশাপাশি। চুপচাপ কথা বলছে না। আমার কৌতূহল তো আর যায় না।
সকাল পেরিয়ে দুপুর হলো! দেখি একই অবস্থা। দুপুর পার হয়ে বিকেল হলো, দেখি একই অবস্থা।
সন্ধ্যা নামে নামে যখন, আমার তো কৌতূহল আর যায় না! তারপর দেখি, দুই মহিলা উঠে দাঁড়ালেন। পাশাপাশি হেঁটে চলে যাচ্ছেন, কিন্তু কেউ কারো সাথে কথা বলছেন না।
ব্যাটা গাঁজাখুরি কথা… এটাও কি সম্ভব!
রাজা তো এতক্ষণ সিংহাসনে বসেছিলেন, লাফ দিয়ে উঠলেন। বললেন যে, ব্যাটা গাঁজাখুরি কথা বলার আর জায়গা পেলে না। এটা কি সম্ভব! যে দুইজন মহিলা পাশাপাশি বসে থাকবে সারাদিন, আর কথা বলবে না! এরকম কথাও আমাকে বিশ্বাস করতে বলো তুমি?
তখন গল্পকার হেসে বললেন, মহারাজ! আমার পুরস্কার!
অসম্ভবকে সম্ভব করাই কোয়ান্টায়ন…
তো এরকম অসম্ভবকে সম্ভব করার নাম হচ্ছে কোয়ান্টায়ন। যখন আপনি কোয়ান্টায়ন করবেন দুইজন না, লামাতে যাবেন ৫০ জন, ৬০ জন, ৭০ জন পাশাপাশি বসে আছেন। পাহাড়ের টিলায় বসে আছেন, একেকজন একেক পাথরে বসে আছেন, কারো সাথে কোনো কথা নাই।

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM