1. [email protected] : আরএমজি বিডি নিউজ ডেস্ক :
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ১১:১৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রপ্তানি ট্রফি লাভকারি হামীম গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিফাত গার্মেন্টস কোটাবিরোধী ছাত্র আন্দোলনে থমকে আছে সারাদেশ হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে যেসব মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও প্রেসিডেন্ট প্রার্থীরা ভক্তদের কাঁদিয়ে ফুটবল থেকে বিদায় নিচ্ছেন দি মারিয়া কাল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন হেপাটাইটিসে আক্রান্ত ৭০ হাজারের বেশি মানুষ পুলিশও মামলা করলো কোটা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের বৈঠক সংসদে আইন পাস না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে রাষ্ট্রপতির জেলায় এসপি হিসেবে দায়িত্ব পেলেন মো. আ. আহাদ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও নিরাময়ে আধুনিক দৃষ্টিভঙ্গি

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২
  • ৪৪২ বার দেখা হয়েছে

জীবনদৃষ্টি ও জীবনাচার পরিবর্তন করে যে ডায়াবেটিস নিরাময় করা যায়—এই বিষয়ে প্রথম গবেষণা করেন আমেরিকার জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির মেডিসিন বিভাগের এসোসিয়েট প্রফেসর ডা. নিল বার্নার্ড। এ গবেষণায় আরো এগিয়ে আসেন ডা. জোয়েল ফুরম্যানসহ অন্যান্য গবেষকরা। খাদ্যাভ্যাস ও জীবনাচারে আমূল পরিবর্তন এনে তারা ডায়াবেটিস নিরাময় করতে সক্ষম হন।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!
imagePreview

ডা. নিল বার্নার্ড এবং ডা. জোয়েল ফুরম্যান-এর প্রোগ্রাম অনুসারে ডায়াবেটিস নিরাময়ে করণীয়

  • বর্জন করুন (কমপক্ষে একবছর)
  • মাছ মাংস ডিম দুধ
  • তেল ঘি মাখন ডালডা মার্জারিন
  • তৈলাক্ত ও চর্বিযুক্ত ভাজাপোড়া খাবার
  • চিনি, সাদা চাল ও সাদা ময়দা
  • প্যাকেটজাত ও প্রক্রিয়াজাত খাবার

প্রতিদিন খান

  • পূর্ণ শস্যদানা (হোল গ্রেইন) : লাল চালের ভাত বা লাল আটার রুটি এবং এর পরিমাণ হবে খুবই কম। চাইলে ভাত বা রুটির পরিবর্তে খুব অল্প পরিমাণে লাল ওটস খেতে পারেন।
  • শাকসবজি, সালাদ ও সবুজ পাতা : হতে হবে পর্যাপ্ত।
  • ডাল মটরশুঁটি বিন বীজ : পরিমিত ও নিয়মিত।
  • ফল : প্রতিদিন কমপক্ষে ৪ ধরনের টক ও কম মিষ্টি ফল খান এবং ওষুধবন্ধ না হওয়া পর্যন্ত বেশি মিষ্টি ফল, যেমন : খেজুর আম কাঁঠাল তরমুজ লাল আপেল ইত্যাদি বন্ধ রাখুন।

তাই ডায়াবেটিস নিরাময়ের জন্যে এ বইয়ের ১৫৮ পৃষ্ঠায় বর্ণিত রিভার্সাল ডায়েট অনুসরণ করুন এক থেকে দুই বছর (ওষুধ ছাড়াই রক্তের সুগার স্বাভাবিক অবস্থায় না আসা পর্যন্ত)।

এ-ছাড়াও ডায়াবেটিসের রোগীরা খেতে পারেন

  • খুব অল্প পরিমাণ আখরোট কাঠবাদাম এবং তিসি চিয়া তিল সূর্যমুখী ও মিষ্টিকুমড়ার বীজ, সয়াদুধ।
  • প্রতিদিন সকালে ১ গ্লাস করে কাঁচা করলার জুস, মেথি ভিজানো পানি ও ঢেঁড়স ভিজানো পানি এবং রাতে ৩ চা চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার।
  • প্রতিদিন কিছু দারুচিনি, ১ কাপ হার্বাল চা (পৃ. ৩০০) ও ৩-৪ কাপ গ্রিন টি।

এ-ছাড়াও ডায়াবেটিসের রোগীরা যা যা করবেন

  • প্রতিদিন একঘণ্টা ব্যায়াম। ব্যায়াম ইনসুলিনের প্রতি শরীরের কোষগুলোর সংবেদনশীলতা বাড়ায়, ফলে ইনসুলিন রক্তের গ্লুকোজকে কোষের ভেতরে প্রবেশ করাতে সমর্থ হয়। এ-ছাড়াও ব্যায়ামের ফলে সৃষ্ট পেশিসংকোচন গ্লুকোজ পরিবহন বাড়ায়, যা ইনসুলিনের সাথে সম্পর্কযুক্ত নয়। অর্থাৎ ইনসুলিনের সহযোগিতা ছাড়াই গ্লুকোজ কোষে প্রবেশ করে। তাই ব্যায়াম করলে ব্লাড সুগার লেভেল বেশ কিছুটা কমে। ফলে ডায়াবেটিস দ্রুত নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।
  • প্রতিদিন দুই বেলা মেডিটেশন
  • প্রতিদিন তিন থেকে পাঁচ দফা প্রাণায়াম
  • প্রতিদিন কিছু সময় সূূর্যস্নান
  • সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন রোজা/ উপবাস/ ফাস্টিং

শেয়ার করুন

এই শাখার আরো সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © RMGBDNEWS24.COM
Translate »